রক্তপাত থেকে বাদ গেল না অষ্টম দফার নির্বাচনও, উত্তপ্ত বীরভূম জেলা

0
91

দেশ দফার ভোটে সকাল থেকেই বীরভূম জেলার বিভিন্ন প্রান্ত থেকে মিলেছে বিক্ষিপ্ত হিংসার খবর।

নানুর বিধানসভার বেজরা গ্রামে ১১২ নম্বর বুথে তৃণমূলের এজেন্ট দেবদাস সরকারের বাড়ি ভাঙচুরের অভিযোগ ওঠে বিজেপির বিরুদ্ধে, যদিও তা অস্বীকার করেছে গেরুয়া শিবির।

লাভপুর বিধানসভার হাতিয়া গ্রামের ৮৫ নম্বর বুথে তৃণমূল এজেন্ট প্রণয় মুখোপাধ্যায়ের বাড়িতে তাণ্ডব চালানোর অভিযোগ ওঠে সিআরপিএফ জওয়ানদের বিরুদ্ধে।

ময়ূরেশ্বর বিধানসভার বিজেপি প্রার্থী শ্যামাপদ মন্ডল প্রজাপাড়া বিদ্যালয়ের ভোটকেন্দ্রে গেলে গ্রামবাসীদের ‘ গো ব্যাক ‘ স্লোগান শুনে বাধ্য হয়ে ফিরে যান। অন্যদিকে তার ভাই বিশ্বজিৎ মণ্ডলকে মারধর করার অভিযোগ ওঠে তৃণমূলের বিরুদ্ধে। সেই অভিযোগ অস্বীকার করার পর তৃণমূল এবং বিজেপি কর্মীরা নিজেদের মধ্যে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন, যার জেরে দুজন তৃণমূল কর্মীর মাথা ফেটে গিয়েছে বলে অভিযোগ।

ভীত-সন্ত্রস্ত ভোটারদের বুথে নিয়ে যাওয়ার সময় বিক্ষোভের মুখে পড়লেন বোলপুরের বিজেপি প্রার্থী অনির্বাণ গঙ্গোপাধ্যায়। তাঁকে ঘিরে বিক্ষোভ ও ইটবর্ষন শুরু হয়। পুলিশের সামনেই পরিস্থিতি অগ্নিগর্ভ হয়। তৃণমূলের অভিযোগ, বোলপুরের বিজেপি প্রার্থীই বুথে বুথে ঘুরে উস্কানি দিয়ে গোলমাল পারানোর চেষ্টা করছেন। অভিযোগ উড়িয়ে কমিশনে নালিশ জানিয়েছেন অনির্বাণ গঙ্গোপাধ্যায়।

বীরভূম জেলায় সুরক্ষার জন্যে ২২৪ কোম্পানি বাহিনী মোতায়েন থাকা সত্ত্বেও কিভাবে এরকম বিশৃঙ্খলার সৃষ্টি হল তা নিয়ে সত্যিই প্রশ্ন উঠেছে। এমনকি নির্বাচন কমিশন যথেষ্ট সতর্কতার সঙ্গে কাজ করার কথা বললেও কমিশনের দায়িত্ববোধ নিয়েও যথেষ্ট সন্দেহ থেকে যাচ্ছে।

News by Priyanka

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here